শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ০৫:৫৮ পূর্বাহ্ন

রাতের আঁধারে কেউ আপনার ক্ষতি করতে আসলে কি করবেন?

রাতের আঁধারে কেউ আপনার ক্ষতি করতে আসলে কি করবেন?

নিস্তব্ধ রাত। কোনো কারণে কাজ শেষে বাসায় ফিরতে আপনার অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে । এমন সময়ে হঠাৎই টের পেলেন কেউ আপনার পিছু নিয়েছে। মনের অজান্তেই এক অন্যরকম ভয় কাজ করা শুরু করে দিয়েছে আপনার মধ্যে। একটু এদিকসেদিক হয়ে গেলে বিপদেও পড়তে পারেন আপনি। এরকম পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে ঠান্ডা মাথায় কিছু কাজ করা খুবই প্রয়োজন। ভেবে দেখুন তো এরকম পরিস্থিতিতে আপনার কি কি করা উচিত? বিশেষজ্ঞদের মতানুসারে  নিচে তেমনিকিছু পদক্ষেপের কথা বলা হলো :-

আশেপাশের পরিস্থিতি সম্পর্কে ভালোভাবে জানুন

আপনি যখন নিশ্চিত হয়ে গেলেন যে কেউ আপনার পিছু নিয়েছে, তখন প্রথমে শান্তশিষ্ট থাকুন যেন আপনি কোনোকিছু টের পাননি। যতোটা সম্ভব মাথা ঠান্ডা রাখুন। আশেপাশের পরিবেশ ও এলাকা সম্পর্কে যতোটা মনে রাখা সম্ভব ধারণা রাখুন। যেমন – কোন এলাকায় ছিলেন, আশেপাশে কি কি ছিল। এগুলো পরবর্তিতে পুলিশ বা পরিবারকে জানানোর সময় গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হয়ে দাঁড়াবে।

ফোনে কোনোকিছু করা থেকে বিরত থাকুন

এমন পরিস্থিতিতে কোনোভাবেই ফোনে অপ্রয়োজনীয় কোনোকিছু করবেন না। আপনি যখন ফোনের স্ক্রিনে নিজের দৃষ্টিকে আবদ্ধ রাখতে যাবেন, দুষ্কৃতকারীদের জন্য সেটা হবে আপনার ক্ষতি করার সুবর্ণ সুযোগ। কারণ, তখন আপনি আশেপাশের পরিবেশ সম্পর্কে অনবতগত। এসময় যেকোনো দিক থেকে আক্রমণ হতে পারে। তবে ফোনে সেসময় কি কি করা দরকার সেটি পরের পয়েন্টে বলা হলো।

ফোনে বিশেষ ব্যবস্থা রাখুন

আত্নীয়-স্বজন কিংবা ঘনিষ্ঠ বন্ধু-বান্ধবদের নাম্বার ইমার্জেন্সি ডায়ালে সেট করে রাখুন। এমন বিপদের সময়ে সেটির খুব প্রয়োজন পড়বে। ডায়ালে চেপে দ্রুত কোনো প্রিয়জনকে ফোন দিন। এসময় অপরপ্রান্তের ব্যক্তিকে যতটা সম্ভব তথ্য দিতে থাকুন। কোথায় আছেন, কি করছেন ইত্যাদি। এতে আপনার পিছু নেওয়া ব্যক্তি কিছুটা হলেও ভয় পাবে। আবার, ফোনে সবসময়ই জরুরি সেবাসমূহের এ্যাপ ইনস্টল রাখুন। যাতে বিপদের সময় আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সাহায্য পাওয়া যায়।

কোনো পাবলিক প্লেসে চলে যান

এমন জায়গা যেখানে সবসময়ই মানুষের আনাগোনা থাকে, তাড়াতাড়ি সেখানে যাওয়ার চেষ্টা করুন। কারণ, আপনার আশেপাশে সবসময়ই এমনকিছু মানুষ থাকেন যারা সবসময়ই মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আসেন ৷ যদি গভীর রাত হয়, তবে মনে রাখুন, ইদানিং এমনকিছু রেস্ট্রুরেন্ট বা পেট্রোল পাম্প চালু হয়েছে যেগুলো ২৪ ঘন্টা চালু থাকে। এমন নিরাপদ জায়গায় পৌঁছে দ্রুত কোনো আত্নীয় বা বন্ধুকে সেখানে আসতে বলুন। এরপর তাঁরা এসে পৌঁছালে, তাঁদের সঙ্গে ঐ স্থান ত্যাগ করুন।

কোথাও যাওয়ার আগে প্রিয়জনদের জানিয়ে যান

সবসময়ই কোনো কাজে বা অন্য কোনো দরকারে কোথাও যাওয়ার প্রয়োজন পড়লে আপনার মাকে জানিয়ে যান। তা নাহলে বাবা, ভাই-বোন কিংবা কাছের বন্ধুকে জানিয়ে যান। এতে করে তাঁরা আগে থেকেই জেনে গেলেন যে আপনি কোথায় থাকতে পারেন এবং প্রয়োজনে তাঁরা আপনার কাছে চলে আসতে পারবেন।

আত্নরক্ষার কৌশল জানা

আত্নরক্ষার প্রাথমিক জ্ঞান রাখুন। ইদানিং দেশের অনেক জায়গাতেই আত্নরক্ষার প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। যেকোনো মার্শাল আর্ট স্কুল থেকেই আত্নরক্ষার কৌশল শিখে নিতে পারেন।

সন্দেহভাজন ব্যক্তির চোখে চোখ রাখুন

এই পয়েন্টটা পড়ে আপনি কিছুটা চমকে উঠতে পারেন। তবে আপনার পিছু নেওয়া ব্যক্তির চোখে চোখ রাখলে সে ভয় পেয়ে যাবে৷ কারণ, তখন আপনি তার চেহারা কিংবা চেহারার অবয়ব এবং এমন কোনো চিহ্ন সম্পর্কে জেনে ফেলেছেন, যাতে করে পরবর্তিতে আপনি তাকে শনাক্ত করতে পারেন। সবচেয়ে বড় কথা নিজের নিরাপত্তা এরকম সময় নিজেকেই নিশ্চিত করতে হয়।

  • বিবিধ : ইসলামিক কিছু পদ্ধতি

এরকম পরিস্থিতিতে পড়লে আল্লাহর কাছে বারবার সাহায্য প্রার্থনা করতে থাকুন। সে ক্ষেত্রে বারবার ‘ইয়া হাফিজু’পড়তে পারেন। যার অর্থ – হে আল্লাহ, আপনি আমাকে রক্ষা করুন।

আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved : Chalo Paltai 2018-19
© ২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত PJM1337